Authors

জন্ম মানিকগঞ্জ জেলার রামাদিয়া নারী গ্রামে। পরিচিতজনের কাছে প্রথাবিরোধী, ব্যতিক্রমী ও সহজ সরল চিন্তার মানুষে হিসেবে পরিচিত। দীর্ঘদিন ধরে “জনপ্রিয় বিজ্ঞান (Popular Science)” ধারার লেখালখির সাথে জড়িত। এছাড়াও প্রাচীন সভ্যতার ইতিহাস নিয়ে গবেষণামূলক লেখালেখিও করেন। তার ওয়েবসাইটে জনপ্রিয় বিজ্ঞান, বাংলা ভাষা, বাঙালি জাতি, প্রাচীন বাংলার জনপদ, বাংলাদেশের জাতীয়তাবাদ সমস্যা ও বাঙালি সংস্কৃতির প্রায় সব বিষয় নিয়ে প্রবন্ধ লেখেন। লেখালেখির পাশাপাশি একজন ফটোগ্রাফার। ভবিষ্যতে...


ড. হিমেল বরকত...


হুমায়ুন আজাদ বাঙলাদেশের প্রধান প্রথাবিরোধী, সত্যনিষ্ঠ, বহুমাত্রিক লেখক; তিনি কবি, ঔপন্যাসিক, ভাষাবিজ্ঞানী, সমালোচক, রাজনীতিক ভাষ্যকার, কিশোরসাহিত্যিক, যাঁর রচনার পরিমাণ বিপুল্। জন্ম ১৪ই বৈশাখ ১৩৫৪; ২৮শে এপ্রিল ১৯৪৭, বিক্রমপুরের রাড়িখালে। ডক্টর হুমায়ুন আজাদ ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাঙলা বিভাগের অধ্যাপক ও সভাপতি। ২০০৪-এর ২৭শে ফেব্রুয়ারির সন্ধ্যায় বাঙলা একাডেমীর বইমেলা থেকে ফেরার সময় চাপাতি দিয়ে আক্রমণ ক’রে মৌলবাদীরা তাকে গুরুতর আহত করে, কয়েকদিন মৃত্যুর...


জন্ম, কোমরপুর গ্রাম, ফরিদপুর, ২২শে ফেব্রুয়ারি ১৯০৬। লেখক ও রাজনীতিবিদ। জেলা ম্যাজিস্ট্রেট খান বাহাদুর কবিরুদ্দিন আহমদ তাঁর পিতা।

নওগাঁ কে.বি. স্কুল থেকে ইংরেজিতে লেটারসহ প্রথম বিভাগে ম্যাট্রিক (১৯২২) পাস। কলকাতা প্রেসিডেন্সি কলেজ থেকে প্রথম বিভাগে তৃতীয় স্থান অধিকার করে আই.এ. (১৯২৬), ইংরেজিতে প্রথম শ্রেণীতে প্রথম স্থান অধিকার করে বি.এ. অনার্স (১৯২৬)। এবং ইংরেজিতে প্রথম শ্রেণীতে প্রথম স্থান অধিকার করে এম.এ. (১৯২৮) ডিগ্রি লাভ। সরকারি বৃত্তি পেয়ে...


জন্ম, মাতুলালয়, গোপালপুর গ্রাম, মাদারীপুর, ২৯শে জুলাই ১৯৩২। কথাসাহিত্যিক। পৈতৃক নিবাস কুঠিবাড়ি, ভাঙ্গা, ফরিদপুর। পিতা, শিক্ষাবিদ এস. এন. কিউ. জুলফিকার আলী।

বরিশাল জেলা স্কুল থেকে ম্যাট্রিক (১৯৫০), ফরিদপুর রাজেন্দ্র কলেজ থেকে আই.এ. (১৯৫৪) ও ঢাকা জগন্নাথ কলেজ থেকে বি. এ. (১৯৫৮) পাস।

১৯৫৯ সালে ‘দৈনিক সংবাদ’-এর বার্তা বিভাগে যোগদান করে কর্মজীবনের শুরু।

তাঁর উপন্যাস—‘নির্জন...


জন্ম : ৪ঠা ফেব্রুয়ারি, ১৯৩১, কুমিল্লা। তাঁর ছাত্রজীবন কেটেছে কুমিল্লা, ফরিদপুর, রাজশাহী ও ঢাকায়। ১৯৫৫ সালে তিনি ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ থেকে এম.বি.বি.এস. ও ১৯৬৪ সালে এডিনবরা বিশইবিদ্যালয় থেকে পিএইচ.ডি. ডিগ্রি অর্জন করেন। পিএইচ.ডি. করার সময় তাঁর গবেষণার ক্ষেত্র ছিল নিউরো-ফার্মাকোলজি (মস্তিষ্কে বিশেষ করে ভেষজ পদার্থের ক্রিয়া প্রতিক্রিয়া সংক্রান্ত বিষয়)। তিনি ১৯৫২ সালে ভাষা আন্দোলনে ও ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন।

কর্মজীবনে প্রথম...